মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩:২৬ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
পরিবর্তনের অঙ্গীকারে আপনাকে স্বাগতম। সময়ের বহুল প্রচারিত বস্তুনিষ্ঠ ও নির্ভরযোগ্য  ভিন্নধারার নিউজ পোর্টাল "পরিবর্তনের অঙ্গীকার"। অতি অল্প দিনে পাঠক নন্দিত হয়ে উঠেছে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের লক্ষে কাজ করছে এক ঝাঁক তরুণ, মেধাবী ও অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী। দেশ-বিদেশের সকল খবরাখবর কারেন্ট আপডেট জানাতে দেশের জেলা, উপজেলা এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সংবাদ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে।  ছবিসহ জীবন বৃত্তান্ত (সি ভি)পাঠাতে হবে। ই-মেইল: khalidsyful@gmail.com , মোবাইল : ০১৮১৫৭১৭০৩৪

মিরপুরে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে ঘাস মারা বিষ খাইয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ স্বামীর নাম

অঙ্গীকার ডেস্ক : / ৮৮ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:১৮ পূর্বাহ্ন

মিরপুরে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে ঘাস মারা বিষ খাইয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ স্বামীর নাম

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মিরপুরে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী শাহনাজ খাতুন (২০) কে ঘাস মারা কীটনাশক খাইয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ স্বামী হৃদয় আলী (২২) এর বিরুদ্ধে।

গত ৯ মাস আগে মিরপুর উপজেলার ছাতিয়ান ইউনিয়নের ছাতিয়ান গ্রামের সাহেব আলীর মেয়ে শাহানাজ খাতুন এর সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় ধুবইল ইউনিয়নের গোবিন্দগোনিয়া গ্রামের শরীফ এর ছেলে হৃদয় আলীর। হৃদয় আলী তার পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে কৌশলে ঘাস মরা বিষ খাইয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। বর্তমানে ভুক্তভোগী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সাথে সন্ধিক্ষণে রয়েছে।

ঘটনার বিষয়ে ভুক্তভোগীর পিতা সাহেব আলী বলেন, আমার মেয়ের পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয় নিয়ে তার স্বামীর সঙ্গে সব সময় মনোমালিন্য চলতে থাকে।গত মাসের ২৭ তারিখ সন্ধায় আমার মেয়ে ও জামাই হৃদয় আলী আমার বাড়িতে বেড়াতে আসে। সকালে আমার মেয়ের হাতে একটি ফিজ আপের বোতল ধরিয়ে বলে এই ওষুধটি খেলে তাদের পেটের বাচ্চা সুস্থ থাকবে। তারপর সে চলে যায় ।পরবর্তী দিন ২৮ নভেম্বর সে দুপুরে ফোন করে জানতে চাই সে ওষুধটি খেয়েছে কিনা। অতঃপর স্বামীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী দুপুরে ফিজআপের বোতলের থাকা পানি পান করে এবং পান করার সঙ্গে সঙ্গে আমার মেয়ের বমি শুরু হয়। সঙ্গে সঙ্গে আমরা তাকে মিরপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তার জামাইকে খবর দিলে সে হাসপাতালে এসে ঘাস মারা বিষ এর কথা স্বীকার করে। তারপর থেকে সে পলাতক রয়েছে। বর্তমানে আমার মেয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে।
এ ব্যাপারে মিরপুর থানার ওসি (তদন্ত) শুভ্র প্রকাশ দাস বলেন, ভুক্তভোগী পরিবার থানা এসেছিল এবং বিষয়টি আমরা যাচাই বাছাই করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর