বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
সংবাদ শিরোনাম
চালকলের বর্জ্যের দূষিত পানিতে ৭ মাস বন্ধ স্বাস্থ্যকেন্দ্র দৌলতপুরের চর এলাকায় পল্লী বিদ্যুৎ কর্মকর্তাদের রিভার ক্রসিং টাওয়ার পরিদর্শন উচ্ছেদ করে ক্রয়কৃত জমি দখল! খাজানগরে বাড়িঘর ভাংচুর লুটপাটের অভিযোগ কুষ্টিয়ায় কলেজ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা কুষ্টিয়ায় পিকাপের ধাক্কায় মটরসাইকেল আরোহী নব বধুর মৃত্যু, আহত-২ নিরব প্রশাসন! কুষ্টিয়ায় মেলার নামে চলছে অশ্লীল নৃত্য বসেছে জুয়ার আসর ও অবৈধ লটারী কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সালাম হত্যা! চলছে বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ, হামলা-লুটপাট কুষ্টিয়ায় মোটরসাইকেল ও পিকাপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঝরে গেলো নব দম্পত্তির প্রাণ! কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষ, আটক-৫ প্রবাসীদের দুর্দশা: দ্রুত পাসপোর্ট পাওয়ার জন্য আকুতি
ঘোষণা:
পরিবর্তনের অঙ্গীকারে আপনাকে স্বাগতম। সময়ের বহুল প্রচারিত বস্তুনিষ্ঠ ও নির্ভরযোগ্য  ভিন্নধারার নিউজ পোর্টাল "পরিবর্তনের অঙ্গীকার"। অতি অল্প দিনে পাঠক নন্দিত হয়ে উঠেছে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের লক্ষে কাজ করছে এক ঝাঁক তরুণ, মেধাবী ও অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী। দেশ-বিদেশের সকল খবরাখবর কারেন্ট আপডেট জানাতে দেশের জেলা, উপজেলা এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সংবাদ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে।  ছবিসহ জীবন বৃত্তান্ত (সি ভি)পাঠাতে হবে। ই-মেইল: khalidsyful@gmail.com , মোবাইল : ০১৮১৫৭১৭০৩৪

মিথ্যা মামলায় ২১ জনের নামে মামলা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি / ১৪৫ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৫ জুন, ২০২১, ১১:১২ অপরাহ্ন

অঙ্গীকার ডেস্কঃ মিথ্যা মামলায় ২১ জনের নামে মামলা। কুষ্টিয়া কুমারখালী বাগুলাট ইউনিয়নের ভড়ুয়া পাড়া গ্রামের আমিরুল (৪৪) নামক এক কৃষকের মৃত্যু হয় । গ্রাম্য সূত্রে জানা যায় আমিরুলের এর মৃত্যু ২৪/০১/২০২১ইং তারিখে রবিবার আনুমানিক রাত ১২টার দিকে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ জনিত কারণে মারা যায়। পরে ভোর চারটার দিকে আমিরুলের লাশ সরিষা ক্ষেতে ফেলে রেখে আসে এই বলে দাবি করছেন গ্রামবাসী। পরে সরিষা ক্ষেত থেকে লাশটি উদ্ধার করে কুমারখালী থানা পুলিশ।

আমিরুলের এই মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে ভড়ুয়া পাড়া গ্রামে ২১ জনের নামে মামলা দায়ের করেন তার পরিবার। বড়ুয়া পাড়া গ্রামের সাধারণ জনগণ বলছে এই আমিরুলের মৃত্যুর বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। গ্রাম্য রাজনীতিতে দুই পক্ষের মারামারি হওয়ার কারণে এই আমিরুলের মৃত্যুকে হত্যা বল দাবি করেন আমিরুলের পরিবার। কিন্তু গ্রামবাসীরা এই মৃত্যুকে সম্পূর্ণ সাঁজানো বলে দাবি করছেন।

আমিরুলের মৃত্যুর পর তার লাশ পোসমাডাম করতে আনা হয় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে। তার চুরান্ত রিপোর্টে মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ রুমন রহমান স্বাক্ষরিত সুস্পষ্ট ভাবে উল্লেখ রয়েছে যে, মৃত ব্যক্তির মৃত্যু হয় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ জনিত কারণে ঘটিয়াছে, যাহার মৃত্যু স্বাভাবিক। এই বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রিপোর্ট দায়ের করেন।

তাহলে মেডিকেল রিপোর্ট মোতাবেক যদি স্বাভাবিক মৃত্যু হিসেবে বিচিত হয় তবে এই মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ২১ জনের নামে মামলা হওয়ার আসলে নেপথ্য কোথায়? এই ২১টি পরিবারের সাথে কি এমন শত্রুতা ছিল যে কারণে সবাই মিলে একজন কৃষককে হত্যা করে। এই নিয়ে এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন।

এলাকাবাসি দাবি করছে একটি স্বাভাবিক মৃত্যুকে ইস্যু করে ২১ জনের উপর মামলা দায়ের অস্বাভাবিক। বিষয়টি খতিয়ে দেখে সুষ্ঠ আইনি ব্যবস্থায় মামলা থেকে অব্যাহতি প্রদানের দাবি তাদের।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর